আমরা এখনো জেতার আশা রাখি – তাইজুল ইসলাম

Share with social media...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এমন মন্তব্য করে তাইজুল বলেন, ‘ম্যাচতো শেষ হয়ে যায়নি। আমরা এখনো জেতার আশা রাখি। দ্বিতীয় ইনিংসে টিম জিম্বাবুয়েকে আমরা স্বল্প রানে অলআউট করে দিয়ে জিততে চাই। টেস্ট ক্রিকেটে রেকর্ড বেশি হয়। আমরাও সেই রেকর্ড আশাকারি। কেননা, এখনো ৩দিন বাকি আছে।  দ্বিতীয় ইনিংসে জিম্বাবুয়েকে দেড়শ রানের ভেতরে অলআউট করে দিলে ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব বলে আশা প্রকাশ করেন প্রথম ইনিংসে ঘূর্ণি জাদুতে ৬ উইকেট লাভ করেন বাংলাদেশি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বহীনতার প্রশ্নে তাইজুল বলেন, ‘আজকের দিনটা হয়তো ভাল যায়নি। ব্যাটসম্যানরা খারাপ করেছেন। তাই বলে এরকম সব সময় হবে না।’

নিজের বাড়তি দায়িত্ব পালন ও ৬ উইকেট শিকারের অনুভূতি ব্যক্ত করে তিনি বলেন, ‘৫ উইকেট বা তার অধিক উইকেট লাভের সুযোগ সব সময় হয় না। অবশ্যই এতে অনুভূতি খুব ভাল।’ ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন প্রথম ইনিংসে মাত্র  ১০ ওভার  বল করে ৪ মেডেন এবং ১৯ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকারী জিম্বাবুয়ের বোলার টেন্দাই চাতারা। তার সঙ্গে হাজির হন জিম্বাবুয়ের বোলিং কোচ ডগলাস হুন্ডু।

সংবাদ সম্মেলনে চাতারা বলেন, ‘আমি বাংলাদেশি ব্যাটম্যানদের গতিবিধি লক্ষ্য করে লাইন-লেন্থ ঠিক রেখে বোলিং করার চেষ্টা করেছি। লক্ষ্য মোতাবেক বল ফেলেছি এবং বলগুলো তাদের খেলতে বাধ্য করেছি। যে কারণে উইকেটে এসেছে।’

এক দিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে খারাপ হওয়ার পর জিম্বাবুয়ে ভাল করার বিষয়ে বলেন, ‘আমরা জানি, টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশি ব্যাটম্যানদের কিভাবে বল করতে হবে। দুই পেসার সেই চেষ্টাই করে গেছি।’

জিম্বাবুয়ের বোলিং কোচ ডগলাস হুন্ডুও বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতাই যেন দলকে পরামর্শ হিসেবে দিয়ে যাচ্ছেন। বলেন, ‘যথেষ্ট প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করার জন্য ঠিক জায়গায় যথেষ্ট বল বোলিং করুন এবং ছেড়ে দেবেন না। শুধু ডান এলাকায় বোলিং রাখা। পিচ যথেষ্ট হবে।আমরা শুধু আমাদের আত্মবিশ্বাস থেকে ভাল চেষ্টা করেছি। সঠিক জায়গায় বল করার চেষ্টা করেছি।’