Croesia in last 8

ডেনমার্ককে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া

Share with social media...
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিশ্বকাপের চূড়ান্তপর্বে ক্রোয়েশিয়াকে শেষ আটে তুলেছেন গোলরক্ষক দানিয়েল সুবাসিচ। কোয়ার্টার ফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার প্রতিপক্ষ স্বাগতিক রাশিয়া। গোলরক্ষকদের দেয়াল হয়ে দাঁড়ানোর এই ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছেন ইভান রাকিতিচ। তাঁর লক্ষ্যভেদেই টাইব্রেকারে ৩-২ গোলের জয়ে ’৯৮ বিশ্বকাপের স্মৃতি ফিরিয়ে আনার পথে হাঁটা অব্যাহত রাখল ক্রোয়েশিয়ার সোনালি প্রজন্ম। এর আগে ম্যাচটা ১-১ গোলে অমীমাংসিত ছিল।

স্নায়ুক্ষয়ী এই টাইব্রেকারে প্রথম শটটা নেন ডেনিশ তারকা ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেন। তাঁর শট ক্রোয়াট গোলরক্ষক দানিয়েল সুবাসিচের হাতে লেগে গোলপোস্ট কাঁপিয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ক্রোয়েশিয়ার হয়ে প্রথম মিলান বাদেলির নেওয়া প্রথম শটটা অবশ্য রুখে দেন ক্যাসপার স্মেইকেল। দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে ডেনিশদের টাইব্রেকার-পরীক্ষা পর্যন্ত তুলে এনেছিলেন স্মেইকেল। তবে স্মেইকেলের বীরত্ব মুছে এই ম্যাচটা নিজের করে নিয়েছেন সুবাসিচ।

এরপর ডেনিশ অধিনায়ক সিমোন ক্যার লক্ষ্যভেদ করেন। ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় ডেনমার্ক। ক্রামারিচ এসে লক্ষ্যভেদ করে ক্রোয়েশিয়াকে ১-১ ব্যবধানে সমতায় ফেরান। ক্রন-দেলি ডেনমার্ককে আবারও এগিয়ে দেন ২-১ ব্যবধানে। মডরিচ এসে এবার আর কোনো ভুল করেননি। লক্ষ্যভেদ করে ম্যাচে টিকিয়ে রাখেন ক্রোয়েশিয়াকে।

লাস শোনের শট রুখে দেন ক্রোয়াট গোলরক্ষক সুবাসিচ। পরের দফায় ক্রোয়াট জোসিপ পিভারিচের শটও ঠেকিয়ে দেন স্মেইকেল। ২-২ ব্যবধানে ম্যাচ তখনও অমীমাংসিত। এই অবস্থায় নিকোলাই হোর্গেনসনকেও রুখে দেন সুবাচিস। অর্থাৎ পরের শটে ক্রোয়েশিয়া লক্ষ্যভেদ করলেই তাঁরা উঠে যাবে কোয়ার্টার ফাইনালে। রাকিতিচ এসে ঠান্ডা মাথায় সেই কাজটা সেরে ক্রোয়েশিয়াকে শেষ পর্যন্ত তুলেছেন শেষ আটে।