ভারতের ত্রিপুরা কৃতজ্ঞতা জানালো বাংলাদেশেকে

Share with social media…
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

২৬ জানুয়ারি ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস। গতকাল শুক্রবার এ উপলক্ষে দেশের অন্যান্য অঞ্চলের সঙ্গে আগরতলায়ও বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গতকাল সরকারি পর্যায়ে ত্রিপুরার মূল অনুষ্ঠানটি ছিল আসাম রাইফেলস মাঠে। সেখানে তেরঙা জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে আধা সামরিক বাহিনীর অভিবাদন গ্রহণ করেন রাজ্যপাল তথাগত রায়।

এসময় খাদ্যশস্য, জ্বালানিসহ ভারী যন্ত্রপাতি পরিবহনে সুযোগ দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের রাজ্যপাল তথাগত রায়।  অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে বাংলাদেশের সরকার ও জনগণকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে পাহাড়ি প্রান্তিক রাজ্যটিতে বাংলাদেশের মধ্য দিয়ে ভারী যন্ত্রপাতি, খাদ্যশস্য, জ্বালানি আমদানিতে বিশেষ সহায়তার জন্য প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান তিনি। তথাগত রায় বলেন, ‘দুর্গম পাহাড়ি পথে প্রাকৃতিক দুর্যোগের কবলে মাঝেমধ্যেই ত্রিপুরাকে সমস্যার মুখে পড়তে হয়। কিন্তু প্রতিবেশী বাংলাদেশের মধ্য দিয়ে মালামাল নিয়ে আসার সুযোগ সমস্যা সমাধানে বিশেষ সহায়ক ভূমিকা পালন করে।’

রাজ্যপাল বলেন, ‘দেশভাগের আগে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে যে যোগাযোগ ব্যবস্থা ছিল, দুই দেশ সেটাকেই আবার চালু করতে চাইছে। এতে দুই দেশেরই লাভ হবে।’

অনুষ্ঠানে অন্যান্য প্রসঙ্গ টেনে কমিউনিস্ট–শাসিত ত্রিপুরায় বিজেপির সাবেক এই নেতা জানান, ‘সামান্য কয়েকটি ক্ষেত্র’ ছাড়া রাজ্য সরকারের সঙ্গে কাজ করতে তাঁর কোনো অসুবিধা হচ্ছে না।একই সঙ্গে তিনি রাজ্যপালের ভূমিকা প্রসঙ্গে মজা করে বলেন, ‘রাজ্যপালের পোস্ট হলো ডিজেল জেনারেটর সেটের মতো। জেনারেল পাওয়ার সাপ্লাই ঠিক থাকলে রাজ্যপালের প্রয়োজন হয় না। তবু স্ট্যান্ডবাই রাখতেই হয়। ঈশ্বরের অশেষ কৃপা আমাকে স্ট্যান্ডবাই হিসেবেই কাজ করতে হচ্ছে। জেনারেটরের দরকার হয়নি ত্রিপুরায়।’

Leave a comment

Your email address will not be published.


*